শনিবার, মে 18, 2024
শনিবার, মে 18, 2024

HomeFact CheckFactcheck: ভাইরাল ভিডিওটি কি ইসরায়েলের কমান্ডারের গ্রেফতার হওয়ার? দাবিটির সত্যতা জানুন 

Factcheck: ভাইরাল ভিডিওটি কি ইসরায়েলের কমান্ডারের গ্রেফতার হওয়ার? দাবিটির সত্যতা জানুন 

Claim– যে ইসরায়েলি কমান্ডারের আদেশে গাজায় হামলা করা হয়েছে সে গ্রেফতার
Fact– মুলত গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিটি আজারবাইজানের বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপের একজন

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে “যেই কমান্ডোর আদেশে ইসরায়েল হামলা করতো, ফিলিস্তিনের হাতে গ্রেফতার,” দাবিতে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ভাইরাল ভিডিওগুলো দেখুন এখানে- টিকটক, টিকটক, টিকটক, টিকটক, টিকটক, টিকটক। এসব ভিডিওতে বলা হচ্ছে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিটি ইজরায়েলের কমান্ডার/নেতা, যার নির্দেশে গাজা,ফিলিস্তিনে হামলা হতো সে এখন ফিলিস্তিন পুলিশের হাতে গ্রেফতার। পোস্টগুলোর স্ক্রিনশট দেখুন এখানে- 

ss of the viral post
courtesy: tiktok/user
ss of the viral post
courtesy: tiktok/user

নিউজচেকার-বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে যে দাবিটি মিথ্যা। 

 Fact check/ Verification 

গুগল রিভার্স ইমেজ ও কি-ওয়ার্ড সার্চ এর সাহায্যে অনুসন্ধান করে জানা যায় ভাইরাল ভিডিওগুলোতে থাকা গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদ্বয় ইজরায়েলের কোন কমান্ডার বা নেতা নয়। বরং তারা আজারবাইজানের একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী দলের নেতা। প্রতিবেদন দেখুন এখানে-  AP, RFE/RL, DW. এছাড়াও ভাইরাল ভিডিওটির মুল ভিডিও ইউটিউবে খুজে পাওয়া যায়। দেখুন এখানে-  Kanal13

Main video of that resembles the viral video
courtesy: Yotube/ Kanal13

 গত ৭ই অক্টোবর ইজরায়েলের উপর ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের হামলার মধ্য দিয়ে পুনরায় ইজরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘর্ষ আলোচনায় আসে। গত ৭ই অক্টোবর হামাস ইজরায়েলের উপর ৫০০০ রকেট ছোড়ার দাবি করে। এতে করে ন্যুনতম ২৫০ জন ইজরায়েলি নিহত ও ১৫০০ জন আহত হন। এর জবাবে ইজরায়েল এয়ার স্ট্রাইক চালালে গাজায় ২৩২ জন ফিলিস্তিনি নিহত ও ১৭০০ জনের মত আহত হন বলে ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়। প্রতিবেদন দেখুন এখানে- এপি নিউজ। ৭ই অক্টোবর শুরু হওয়া এই সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত উভয় পক্ষেরই প্রায় ৪০০০ এর মতো মানুষ নিহত হয়েছে

এই সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে নিয়মিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে নানা সময়ে ছড়াচ্ছে ভুয়া খবর। সম্প্রতি আজারবাইজানের বিচ্ছিন্নতাবাদী দল নাগোরনো-কারাবাখের মুল নেতাদের গ্রেফতার করা হলে সেই ভিডিওকে ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে তাদেরকে (নাগোরনো-কারাবাখের নেতাদের) ইজরায়েলি কমান্ডার/নেতা বলে প্রচার করা শুরু হয়। সাথে আরও দাবি করা হয় তারা ফিলিস্তিনি পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। প্রকৃতপক্ষে আজারবাইজানের নাগারনো-কারাবাখ অঞ্চলের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের নেতাদের গত সেপ্টেম্বরে আজারবাইজান মিলিটারি গ্রেফতার করে সেই অঞ্চলের উপর পুর্ণ দখল দাবি করে আজারবাইজান। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ছিলেন Arayik Harutyunyan, যিনি সেপ্টেম্বরের এই অভিযান-এর পুর্ব পর্যন্ত নেতৃত্ব দিয়েছেন দলটিকে, Arkadi Gukasian, প্রেসিডেন্ট (১৯৯৭-২০০৭),  Bako Sahakyan, প্রেসিডেন্ট (২০০৭-২০২০) ও Davit Ishkhanyan, সংগঠনটির স্পিকার। প্রতিবেদন দেখুনে এখানে। 

বামে আরকাদি গুকাসাইন, মাঝে বাকো সাহাকাইন ও সর্ব ডানে আরাইক হারুতিউনিয়ান। ভাইরাল ভিডিওগুলোতে মুলত বাকো সাহাকাইন ও আরাইক হারুতিউনিয়ানকে গাড়ি থেকে গ্রেফতারকৃত অবস্থায় নামতে দেখা যায়। 

Conclusion: 

সুতরাং, ইজরায়েলি নেতা/কমান্ডাররা গ্রেফতার দাবিতে প্রচারিত ভাইরাল ভিডিওটি প্রকৃতপক্ষে আজারবাইজানের নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চলের বিচ্ছিনতাবাদী সংগঠনের নেতাদের। 

Result: False

Our Sources: 
AP, RFE/RL, DW,Kanal13.


সন্দেহজনক কোনো খবর ও তথ্য সম্পর্কে আপনার প্রতিক্রিয়া জানাতে অথবা সত্যতা জানতে আমাদের লিখে পাঠান checkthis@newschecker.in অথবা whatsapp করুন- 9999499044 এই নম্বরে। আমাদের whatsapp চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এখানে ক্লিক করে।এছাড়াও আমাদের সাথে Contact Us -র মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন ও ফর্ম ভরতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular