রবিবার, এপ্রিল 21, 2024
রবিবার, এপ্রিল 21, 2024

HomeFact CheckFact check: খালেদা জিয়া বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পাননি

Fact check: খালেদা জিয়া বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পাননি

Claim- চিকিতসার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া

Fact- বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয় নি। কারামুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর জন্য পুনরায় আবেদন করা হয়েছে।

‘উন্নত চিকিতসার জন্য বিদেশ যাচ্ছেন খালেদা জিয়া’ এমন একটি দাবি সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। 

সংশ্লিষ্ট দাবিতে করা পোস্টগুলো দেখুন- এখানে, এখানেএখানে

পোস্টগুলোর স্ক্রিনশট দেখুন নিচে-  

বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন বেগম জিয়া দাবিতে ভাইরাল পোস্ট
কার্টেসিঃ ফেসবুক/ইউজার

বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন বেগম জিয়া দাবিতে ভাইরাল পোস্ট
কার্টেসিঃ ফেসবুক/ইউজার

বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন বেগম জিয়া দাবিতে ভাইরাল পোস্ট
কার্টেসিঃ ফেসবুক/ ইউজার

নিউজচেকার-বাংলাদেশ, দাবিটির সত্যতা যাচাই করে দেখেছে যে সংশ্লিষ্ট দাবিটি মিথ্যা। 

Fact check/ Verification

BNP চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ২০২০ সালে মার্চ মাসে জেল থেকে মুক্তি পেলে ৬ দফায় তার জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য রাষ্ট্রপক্ষের নিকট আবেদন করা হয়ে আসছিলো এবং দফায় দফায় এই মেয়াদ বেড়েছেও। গত ৬ই মার্চ বেগম জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর জন্য ও উন্নত চিকিতসার বিদেশে যাওয়ার জন্য অনুমতি চেয়ে পুনরায় আবেদন করা হয় তার পরিবারের পক্ষ থেকে। এই সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদন দেখুন- সময় নিউজ, বিডিনিউজ২৪  ও  ঢাকা ট্রিবিউন

এর আগে ২০১৮ সালে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবাস দেয়া হয়। 

বিদেশ যাওয়ার অনুমতি নয় বরং জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করা হয়
কার্টেসিঃ ঢাকা ট্রিবিউন
বিদেশ যাওয়ার অনুমতি নয় বরং জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করা হয়
কার্টেসিঃ বিডিনিউজ২৪

এসকল প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী বেগম খালেদা জিয়াকে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ শারীরিক অসুস্থতা বিবেচনা করে কারামুক্তি দেয়া হয় প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশে। তবে মুক্তির পুর্বে শর্ত ছিলো তিনি দেশে থেকে চিকিৎসা নিবেন এবং দেশের বাইরে যেতে পারবেন না। পরবর্তীতে ৬ দফায় বিভিন্ন সময়ে বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করলে তা ৬ মাস করে বাড়ানো হয়। সর্বশেষ মেয়াদ আগামী ২৪ই মার্চ উত্তীর্ণ হবে। এ পর্যায়ে তার পরিবারের পক্ষ থেকে পুনরায় মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদন করা হয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আবেদনটি আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। 

‘এরপর থেকেই খালেদা জিয়া উন্নত চিকিতসার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পাচ্ছেন’ এমন একটি দাবি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন পোস্ট ছড়িয়ে পরে। 

নিউজচেকার বাংলাদেশ গুগল কি-ওয়ার্ড সার্চ এর সাহায্যে অনুসন্ধান করে দেখছে যে, বেগম জিয়ার বিদেশে যাওয়ার অনুমতি পাওয়ার দাবিটি সম্পূর্ন মিথ্যা। 

বিগত ৯ই মার্চ আইনমন্ত্রী সচিবালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন-‘আমি জানতে পেরেছি যে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তার ভাই শর্তযুক্ত মুক্তির আবেদন করেছেন। সেটি আইন মন্ত্রণালয়ে এসেছে। তবে আমার কাছে এখনও আসেনি। ফাইলটি দেখার পর আমি জানাতে পারব।’

সূত্র- সময় নিউজ। 

আবেদন এর খবর প্রকাশ হওয়ার পর পর খালেদা জিয়া বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পাচ্ছেন এমন দাবি ছড়িয়ে পরলে এটিকে গুজব বলেন আইনমন্ত্রী। কালের কণ্ঠের এক প্রতিবেদন এ উল্লেখ করা হয়- ‘বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য সরকার বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দেবে, এই গুজবের ভিত্তি নাই বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। তবে আগের শর্তেই খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ছে। কত দিনের জন্য সাজা স্থগিত থাকবে তা এখনো চূড়ান্ত করা হয়নি। বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) আইন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এই তথ্য জানান।’ 

বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পাননি বেগম জিয়া এই মর্মে আইনমন্ত্রীর ব্রিফিং
কার্টেসিঃ কালের কণ্ঠ

Conclusion:

বেগম জিয়ার বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পাওয়ার ঘটনাটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন গুজব। 

Result: False


সন্দেহজনক কোনো খবর ও তথ্য সম্পর্কে আপনার প্রতিক্রিয়া জানাতে অথবা সত্যতা জানতে আমাদের লিখে পাঠান checkthis@newschecker.in। এছাড়াও আমাদের সাথে Contact Us – ফর্মের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular